ঠাণ্ডা দিন ও ব্যস্ত রাজনীতি

Monday, December 22, 2008

বাংলাদেশের উপর দিয়ে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে চলেছে। তীব্র শীতে কাবু হয়ে পড়েছে জনপদ। সাথে সাথে বোধহয় কাতর হয়ে পড়েছে রাজনীতির অঙ্গন। আর মাত্র কয়েকটা দিন। তারপরই শুরু হবে রাজনীতির আসল খেলা। আগামী ২৯ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে হবে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সংসদ নির্বাচনে জিতে আসতে জামায়াত শিবির ও বিএনপির গুণ্ডারা ইতিমধ্যেই শুরু করেছে তাদের নোংরা কার্যকলাপ। জামায়াত শিবির জিন্নাহকে প্রশংসা করা শুরু করেছে, পরিত্যক্ত দ্বিজাতিত্ত্বকে করতে চাচ্ছে মহিমান্বিত। খালেদা জিয়া আবার সবকিছুতে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছেন। আগাম চালাকি করার একটা বদভ্যাস তিনি ভালই পারেন। আর তা হল সবকিছুতে ষড়যন্ত্রের গন্ধ খুঁজে পাওয়া। আরে গাধা, কে ষড়যন্ত্র করছে তা প্রকাশ করুন। তাহলে জাতি ষড়যন্ত্রকারীদেরকে চিনতে পারবে। সঠিক যুক্তিপ্রমাণ দিয়ে তাদের মুখোশ খুলে দিন। যদি শেখ হাসিনা ষড়যন্ত্রকারী হন, তাহলে তাও বলুন। নাকি তা বলতে ভয় পান? নাকি মিথ্যা কথার ফুলঝুড়ি ছুটিয়ে সাধারণ জনগণকে বোকা বানিয়ে রাখতে চান। নাকি আপনারা নিজেরাই ষড়যন্ত্র করছেন। যেন, কাজ শেষে অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দেয়া সহজ হয়।

এদিকে খালেদা জিয়ার পুত্র কোকোর অবৈধ অর্থ পাওয়া গেছে সিঙ্গাপুরে। পাশাপাশি বিখ্যাত সিমেন্স কোম্পানীকে কাজ পাইয়ে দেবার কথা বলে ঘুষ নেয়ার খবর হয়ে পড়েছে প্রকাশিত। কি কান্ড! দেশনেত্রীর সন্তান দেশবিরোধী কার্যকলাপে জড়িত! খালেদা জিয়া কি লজ্জার মাথা খেয়ে বসে আছে নাকি? এরকম কুলাঙ্গার সন্তান যার ঘরে তার আবার অন্যের দোষ খুজে বের করা কেন? ষড়যন্ত্র কি আর গাছে ধরে নাকি তার নিজের ঘরের ভিতরেই চলছে দেশবিরোধী বিভিন্ন ষড়যন্ত্র।

আসলে দেশের মানুষ অশিক্ষিত, অল্পশিক্ষিত বলে তাদেরকে যা বোঝানো হয়, তাই তারা বোঝে। শিক্ষিত না হলে কি আর নিজের ভাল নিজে কি আর বুঝতে পারে? তাহলে আর তাদেরকে মিথ্যা কথা বলে প্রতারিত করা যেত না। তারা নিজেরাই বুঝতে পারত কে দেশদরদী আর কে দেশবিরোধী।

১৯৭১ সালে যারা দেশের স্বাধীনতা চায় নাই, সেই জামায়াতে ইসলামীকে সাথে নিয়ে খালেদা জিয়া দেশের কি উন্নয়ন করবেন, তা বোঝার জন্য তো রাজনীতিবিদ হতে হয় না। সাধারণভাবে একটু চোখকান খোলা রাখলেই চলে। বোঝা যায় হিংস্র জামায়াত ও তাদের গোপন (প্রকাশ্য!) প্রেমিকা খালেদা জিয়ার নোংরা স্বরূপ।

0 comments:

Post a Comment

পদচিহ্ন

Blog Archive

মুক্তমনা বাংলা ব্লগ

  © Dristipat

Back to TOP