ডাউনলোড করুন ইসলাম ও শরীয়া

Wednesday, December 17, 2008

হাসান মাহমুদ ওরফে ফতে মোল্লা'র বিখ্যাত বই 'ইসলাম ও শরীয়া'। ইসলামকে কিভাবে মোল্লারা নিজ স্বার্থে ব্যবহার করছে, কিভাবে তারা কোরান হাদিসের ভুল ব্যাখ্যার মাধ্যমে জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করছে ইত্যাদি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা রয়েছে এই বইতে।

লেখক মানবতার প্রতি অসম্ভব মমতা নিয়ে এই বইটি লিখেছেন। তিনি চেয়েছেন, শরীয়া নামক অপব্যাখ্যার দ্বারা আর কোন মানুষকে যেন নির্যাতন নিপীড়নের শিকার না হতে হয়।

লেখক দেখেছেন যুগে যুগে দেশে দেশে ইসলামের বিভিন্ন আয়াতের বিভিন্নরকম ব্যাখ্যা করা হয়েছে। আর এই সব ব্যাখ্যা তৈরি করেছেন অল্পশিক্ষিত, গেয়ো, অসংস্কৃত মৌলানারা। এদেরকে ব্যবহার করেছেন ক্ষমতালোভী সন্ত্রাসী ইসলামী শাসকেরা। ক্ষমতায় যাওয়ার লোভে গত সহস্র বৎসরে বিভিন্ন দেশের বিশেষ করে আরব অঞ্চলের শাসকরা ইসলামকে যথেচ্ছভাবে ব্যবহার করেছেন। সাধারণ মানুষকে দাবিয়ে রাখতে ইসলামী আইনের করেছেন নানারকম অপব্যবহার।

বর্তমান কালেও চলেছে একই ধারা। তবে এই সময়ে নারীদের উপরই চলছে প্রধান জুলুম। ইসলামের বিভিন্ন আইনের মনগড়া ব্যাখ্যা দিয়ে মোল্লারা নানারকম ফতোয়া দিয়ে চলেছে। নারীর মানবাধিকারকে অস্বীকার করছে। হাসান মাহমুদ এই সব ভণ্ডামীর মুখোশ খুলে দিয়েছেন। দেখিয়ে দিয়েছেন মোল্লাদের নূরানী মুখাবয়বের আড়ালে কি আছে।
নিজের বই সম্পর্কে দু'কথা বলতে গিয়ে লেখক বলেছেন:-

  • ১। এ বই প্রধানতঃ দলিল-নির্ভর, এবং এটা ইসলামে মানবাধিকার-এর ওপরে, মূল ধর্মবিশ্বাসের ওপরে নয়।
  • ২। মানবাধিকার রক্ষা না করলে সেটা বৈধ ধর্ম নয়, এবং কোরাণে মানবাধিকার পুরোটাই রক্ষা করা আছে সেটা অতীত-বর্তমানের অনেক মুসলিম বিশেষজ্ঞ দলিল-বিশ্লেষণ দিয়ে দেখিয়েছেন। আমি তার কিছুটা সংকলন করেছি মাত্র, আমি কোন বিশেষজ্ঞ নই। তাছাড়া এক বইতে সবকিছু দেয়া অসম্ভব।
  • ৩। অজস্র সুত্র দেয়া আছে, বারবার সেগুলো দেখে নিয়েছি। তারপরও কিছু টাইপো থাকতে পারে, প্রায় সব বইতেই থাকে। তবে ইন্টারনেট-এর সুত্র কখনো কখনো বদলানো হয় বা মুছে দেয়া হয়। যেমন, বিশ্ব-বিখ্যাত পণ্ডিত ডঃ জামাল বাদাওয়ী ইসলামে নারী-নেত্রীত্বের তাঁর সিদ্ধান্ত ও যুক্তিগুলো পুরোটাই উল্টো করে দিয়েছেন পরে। সহি আবু দাউদ-এর বেশ কিছু হাদিস মুছে দেয়া হয়েছে, মুছে দেয়া হয়েছে অন্য বহু সুত্র। কিন্তু বইটা তো থেকে যায়। এতে বইয়ের কি মুশকিল হয় তা আপনারা বুঝতেই পারেন।
  • ৪। কোন ধর্মেরই সব প্রশ্নের জবাব কারো পক্ষে দেয়া সম্ভব নয়, শুধু মানুষের ওপরে অত্যাচারটা না হলেই হল। সে বিষয়েই এ বই আমার প্রচেষ্টা, এতে মতভেদ থাকবেই। তবে সেটা দলিল-নির্ভর এবং ভদ্র হওয়া দরকার। ইসলাম নিয়ে গঠনমূলক এবং সুশীল তর্ক তো দুরের কথা আলাপ-আলোচনার সংস্কৃতি আমাদের এখনো গড়ে ওঠেনি।
  • ৫। দলিল-নির্ভর হলেও আমার আগের কিছু লেখা ব্যঙ্গাত্মক - ‘‘জামাতের প্ল্যান’’ বা ‘‘জামাতের মৃত্যুদণ্ড’’ ওরকমের। এখন আমি আর তা করিনা, সেজন্য আমার এক সমালোচককে ধন্যবাদ। আমার সমালোচকদের কাছ থেকে অজস্র শিখেছি আমি।
  • ৬। এ বই নিয়ে হুলুস্থুল তর্ক-বিতর্ক করার ইচ্ছে আমার নেই, সে সময়টা অন্য কাজে দিতে হবে। দলিল-বিশ্লেষণ দেয়া থাকল যাতে অন্যেরা তাঁদের পড়া-র সাথে মিলিয়ে নিতে পারেন ও আরো বেশী পড়তে পারেন - আমাদের সবাইকে জানাতে পারেন।
  • ৭। এর কোন ভুল বা অসম্পুর্ণতা ধরিয়ে দিলে পরের সংস্করণে কৃতজ্ঞতার সাথে উল্লেখ করব।

ইসলাম ও শরীয়া বইটি ডাউনলোড করুনএই লিঙ্ক থেকে।

বইয়ের আকার 'পিডিএফ', সাইজ: ৬‌১২ কিলোবাইট, পৃষ্ঠা সংখ্যা: ৮১।
তথ্যসূত্র: আমারব্লগ.কম


0 comments:

Post a Comment

পদচিহ্ন

Blog Archive

মুক্তমনা বাংলা ব্লগ

  © Dristipat

Back to TOP